ইউকে শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
হেডলাইন

‘অশ্লীল’ চরিত্রে অভিনয় নিয়ে মুখ খুললেন পূর্ণিমা

ইউকে বাংলা অনলাইন ডেস্ক :বিনোদনের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম। টেলিভিশন কিংবা সিনেমা হলের চেয়ে নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম, ডিজনি প্লাস, হটস্টারসহ অন্যান্য ওটিটি প্লাটফর্মেই মুখ গুঁজে বসে থাকতে দেখা যায় এখনকার দর্শকদের। নিজের সময় অনুযায়ী, পছন্দ মতো কনটেন্ট দেখার সুবিধার জন্যই মূলত এত চাহিদা এ প্ল্যাটফর্মগুলোর। কমেডি, হরর, রোমান্টিক, থ্রিলার কিংবা অ্যাকশন-প্ল্যাটফর্মগুলোও তাদের ডালা সাজিয়েছে বাহারি কনটেন্টে। বয়সভেদে এগুলোর আবার শ্রেণিবিন্যাস করা হয়েছে।

অর্থাৎ ১৩ বছর বয়সের দর্শকদের জন্য আলাদা সিনেমা-সিরিজ। রয়েছে পনেরো বছর বয়সের দর্শকদের জন্যও, আবার কিছু রয়েছে ১৮ বছর বা তার ঊর্ধ্বের জন্যও। যেখানে শুধু কাছাকাছি দৃশ্য নয়, থাকছে নানা অশ্লীল, অশালীন দৃশ্যও। তবে এসব কিছুই পশ্চিমা বিশ্বে, তাদের সংস্কৃতি এবং দর্শক চাহিদার কথা মাথায় রেখে করা।

কিন্তু ইদানীং আমাদের দেশীয় ওটিটিতেও এ বিদেশি সংস্কৃতির চর্চা লক্ষ করা যায়। নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম, ডিজনির সঙ্গে মিল রেখে দেশীয় ওটিটিগুলোতে এখন এসব অশ্লীল দৃশ্য দেখানো হচ্ছে বলে অভিযোগ কিছু দর্শকদের। তাদের দাবি, এসব কনটেন্ট আমাদের সংস্কৃতিকে বিশ্বে ভুলভাবে উপস্থাপন করছে। কিন্তু এ ভালগারিজম কিংবা অশ্লীলতা আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে কতটুকু সামঞ্জস্যপূর্ণ? দেশীয় কনটেন্টে এসব অশালীন দৃশ্যে থাকা কিংবা সেসব দৃশ্যে অভিনয় করা নিয়ে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী দিলারা হানিফ পূর্ণিমা।

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা বিষয়টি দেখছেন অশালীনভাবেই। এক সময় তিনি নিয়মিত অভিনয় করেছেন বড় পর্দায়। এখনো সিনেমায় অভিনয় করছেন। কিন্তু ওটিটি থেকে প্রস্তাব পেলেও ফিরিয়ে দিয়েছেন তা। এর পেছনের কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় ওটিটি আমার সঙ্গে যায় না। সেখানে চরিত্রে অশালীনভাবে উপস্থাপনের বিষয় থাকে। সিনেমার ওই দুঃসময়টাতেই (অশ্লীলতার সময়) নিজেকে যখন অশালীনভাবে উপস্থাপন করিনি, এখন ওটিটি তো প্রশ্নই আসে না।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন :

সর্বশেষ সংবাদ

ukbanglaonline.com