ইউকে বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪
হেডলাইন

ব্রণ থেকে মুক্তি মিলবে ঘরোয়া ফেসপ্যাকে

ব্রণ থেকে মুক্তি মিলবে ঘরোয়া ফেসপ্যাকে

ইউকে বাংলা অনলাইন ডেস্ক :শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা, ঋতু যাই হোক না কেন, ব্রণর সমস্যা কিছুতেই পিছু ছাড়তে চায় না! তাই ব্রণ সারাতে অনেকেই বাজারের নানা প্রোডাক্টের ওপর ভরসা করেন। কিন্তু কেমিক্যাল-যুক্ত প্রোডাক্ট বেশি ব্যবহারে ত্বক খুব রুক্ষ হয়ে যায় আর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ভয়ও থাকে। তার চেয়ে যদি বাড়িতেই ব্রণ সারানোর প্যাক তৈরি করে নিতে পারেন, তাহলে সবচেয়ে ভালো উপকার মিলতে পারে!

আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন ৬টি ভেষজ ফেস প্যাক সম্পর্কে, যেগুলো সঠিক নিয়ম মেনে ব্যবহার করলে ব্রণ-ফুসকুড়ির সমস্যা থেকে সহজেই রেহাই মিলতে পারে…

মধু এবং লেবুর রস

মধুতে রয়েছে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য, যা ব্রণ কমাতে দারুণ কার্যকর। লেবুর রসে সামান্য পানি মিশিয়ে নিন। ১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে আধা চা চামচ পানি মেশানো লেবুর রস মিশ্রিত করুন। পুরো মুখে এই প্যাকটি লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই মিশ্রণটি লাগাতে পারেন।

অ্যালোভেরা এবং হলুদের ফেস প্যাক

অ্যালোভেরা এবং হলুদ উভয়েরই অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এই উভয় উপাদানই ব্রণ কমায় এবং ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ১ টেবিল চামচ ফ্রেশ অ্যালোভেরার সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদ ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এই ফেস প্যাকটি পুরো মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই ফেস প্যাক লাগাতে পারেন।

মুলতানি মাটি এবং গোলাপ জলের ফেস প্যাক

মুলতানি মাটিতে প্রদাহ-বিরোধী বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এটি ত্বকের ময়লা, তেল অপসারণ করে এবং ত্বককে পরিষ্কার ও ব্রণ-মুক্ত রাখে। ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটির সঙ্গে ১ টেবিল চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে নিন ভালো করে। এই মিশ্রণটি পুরো মুখে লাগিয়ে শুকোতে দিন। তারপরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই বার এই প্যাক লাগাতে পারেন।

হলুদ এবং মধুর ফেস প্যাক

হলুদ এবং মধু উভয়েরই প্রদাহ বিরোধী এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। ত্বকের নানা সমস্যা দূর করতে এই দু’টি উপাদান দারুণ কার্যকর। ১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। আপনার পুরো মুখে বা শুধুমাত্র ব্রণর জায়গায় এই পেস্টটি লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তারপরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিন বার এই ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

ওটমিল এবং মধুর ফেস মাস্ক

ওটমিলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যে কারণে নানা চর্মরোগ সারাতে ওটমিল কার্যকর। মধুতে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। মধু ব্রণ কমায় এবং ত্বককে সুস্থ ও আর্দ্র রাখে। ১ টেবিল চামচ ওটস গুঁড়োর সঙ্গে ২ টেবিল চামচ মধু, ১ টেবিল চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে নিন ভালো করে। এই মিশ্রণটি আপনার মুখে এবং গলায় লাগান। ২০ মিনিট পর হালকা গরমপানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই প্যাক লাগান।

দই এবং মুলতানি মাটির ফেস প্যাক

দইতে উপস্থিত ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের গঠন উন্নত করে এবং ত্বক মসৃণ করতে সাহায্য করে। এই উভয় উপাদানই ত্বক পরিষ্কার ও সুস্থ রাখে। ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটির সঙ্গে ২ টেবিল চামচ টক দই মিশিয়ে নিন ভালো করে। এই পেস্টটি পুরো মুখে বা শুধুমাত্র ব্রণের জায়গায় লাগান। শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার এই ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন :

সর্বশেষ সংবাদ

ukbanglaonline.com